Kolkata Allegation Of Killing Of Minor Girl By Her Mother


ব্রতদীপ ভট্টাচার্য, কলকাতা : সে ‘লক্ষ্মী’। আর তাই কি অপরাধ? শুধুমাত্র কন্যাসন্তান হওয়ার অপরাধে সদ্যোজাতকে খুনের অভিযোগ উঠল তাঁর মায়ের বিরুদ্ধে! তাও আবার নার্সিংহোমেরই কেবিনে! দু’দিনব্যাপী মা লক্ষ্মীর আরাধনার মধ্যে এমনই ঘটনার সাক্ষী হল কলকাতার একবালপুর এলাকার একটি বেসরকারি হাসপাতাল।

পুলিশ সূত্রে খবর, সোমবার একবালপুরের নেতাজি সুভাষ নার্সিংহোমে ভর্তি হন লাভলি সিং (২১) নামের এক মহিলা। মঙ্গলবার সকালে এক কন্যা সন্তানের জন্ম দেন তিনি। আজ ভোরে নার্স ও আয়ারা কেবিনে গিয়ে দেখেন সদ্যোজাত শিশুকন্যা নিথর অবস্থায় পড়ে রয়েছে। সন্দেহ হওয়ায় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে খবর দেন তাঁরা। চিকিৎসকরা পরীক্ষা করে দেখেন শিশুকন্যার মৃত্যু হয়েছে। পুলিশ সূত্রে দাবি, কন্যাসন্তান হওয়ায় সদ্যোজাতকে বালিশ চাপা দিয়ে শ্বাসরোধ করে খুনের কথা স্বীকার করে নিয়েছেন মহিলা। এই ঘটনায় খুনের মামলা রুজু হয়েছে। মহিলার স্বামী অজয় সিং যেহেতু পাশের বেডে থাকছিলেন, তাঁর ভূমিকাও খতিয়ে দেখছেন তদন্তকারীরা। 

হাসপাতাল সূত্রে জানা গিয়েছে, গত ১৮ তারিখ অভিযুক্ত মহিলা লাভলি সিংকে ভর্তি করা হয়েছিল হাসপাতালে। গতকাল সকালে তিনি কন্যাসন্তান প্রসব করেন। সদ্যোজাত ও মা দু’জনেই সুস্থ-সবল ছিল বলেই হাসপাতাল সূত্রে খবর। কিন্তু আজ ভোরে ঘটে মর্মান্তিক ঘটনাটি। নার্স ও আয়ারা যখন তাঁদের রুটিন ভিসিটে আসেন, তখন তাঁরা দেখেন নিথর অবস্থায় পড়ে রয়েছে শিশুকন্যাটি। অভিযোগ, সেই সময় জিজ্ঞাসাবাদ করলে অভিযুক্ত লাভলি সিং কোনও উত্তর দেননি। নার্সরা শিশুটির অবস্থা জানাতেই চিকিৎসকা ছুটে আসেন, তাঁরা পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে দেখেন শিশুটির দেহে আর প্রাণ নেই।

হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের গোটা ঘটনায় সন্দেহ হওয়ায় তারা একবালপুর থানায় খোঁজ দেন। পুলিশ এসে লাগাতার জিজ্ঞাসাবাদ করা শুরু করলে শেষমেশ ওই মহিলা নিজের মেয়েকে খুন করার অভিযোগ স্বীকার করে নেন বলেই হাসপাতাল সূত্রে দাবি। তারা জানিয়েছেন, গত রাতে নার্স-আয়ারা ডিউটি ছেড়ে চলে যাওয়ার পরে নিজের কেবিনে শিশুকন্যাকে শ্বাসরোধ করে খুনের কথা অভিযুক্ত স্বীকার করে নেন বলেও দাবি।

আরও পড়ুন- পরপর দুই কন্যাসন্তান হওয়ায় বধূকে খুনে অভিযুক্ত শ্বশুরবাড়ি, আটক স্বামী

আরও পড়ুন- লক্ষ্মীরূপে নিজের কন্যাকেই পুজো-অঞ্জলি দান, সমাজকে ‘বিশেষ বার্তা’ শ্যামনগরের দম্পতির



Source link