New Zealand Mp Julie Anne Genter Move Hospital Via Cycle In Labour Pain Give Birth Healthy Child


অকল্যান্ড: সারা বিশ্বেরই নজর কেড়ে নিলেন নিউজিল্যান্ডের আইনসভার এক সদস্যা। আন্তর্জাতিক মিডিয়াতে আলোচনার কেন্দ্রে চলে এসেছেন নিউজিল্যান্ডের সাংসদ জুলি অ্যানে গেন্টার (Julie Anne Genter)। আর এই আলোচনার কারণ তাঁর সাহস। আসলে গত রবিবার প্রসব বেদনা অনুভব করেন জুলি অ্যানে গ্রেন্টার। এরপর আর অপেক্ষা করেননি। নিজেই সাইকেল চালিয়ে চলে আসেন হাসপাতালে। এর এক ঘণ্টা পর সন্তানের জন্ম দেন তিনি। এরপর সোশাল মিডিয়ায় সন্তানের জন্ম দেওয়ার খবর শেয়ার করেন তিনি। প্রসূতি ও সদ্যোজাত উভয়েই সুস্থ বলে জানা গেছে। 

নিউজিল্যান্ডের সাংসদ জুলি অ্যানে গেন্টার তাঁর ফেসবুক পেজে লেখেন, ভোর তিনটে চার মিনিটে আমি আমার পরিবারের সবচেয়ে ছোট সদস্যকে স্বাগত জানিয়েছি। সাইকেলে চেপে হাসপাতালে হাসপাতালে পৌঁছনোর কোনও পরিকল্পনাই ছিল না আমার। কিন্তু এমনটা হয়ে গেল।

জুলি অ্যানে গেন্টার তাঁর ফেসবুক পোস্টে লিখেছেন, ভোর রাত দুটোর সময় যখন সাইকেলে চড়ে বসেছিলাম, তখন খুব একটা চার অনুভব করিনি। আর আমার খুব একটা ব্যথাও হচ্ছিল না। কিন্তু মিনিট দশেক পর তীব্র ব্যথা হতে শুরু করে। আর এখন আমার পাশে একটি সুস্থ ও খুশি শিশু শুয়ে রয়েছে, যেমনটা ওর বাবা। 

জুলি অ্যানে গেন্টার কে

জুলি অ্যানে গেন্টার গ্রিন এমপি বলে পরিচিত। পরিবেশ সুরক্ষা নিয়ে সচেতনতা অভিযানের জন্য তিনি আলোচনার কেন্দ্রে থাকেন। জুরি অ্যানে গেন্টারের কাছে ইউএস ও নিউজিল্যান্ড- দুটি দেশের দ্বৈত নাগরিকত্ব রয়েছে। তাঁর জন্ম হয়েছিল মিনেসোটায়। কিন্তু ২০০৬-এ নিউজিল্যান্ডে এসে সেখানে বসবাস শুরু করেন। নিউজিল্যান্ড সংবাদমাধ্যমে বলা হয়েছে যে, এটাই প্রথমবার নয়। এর আগেও ২০১৮-তে এভাবেই সাইকেলে চড়েই হাসপাতালে এসে প্রথম সন্তানের জন্ম দিয়েছিলেন তিনি।

নিউজিল্যান্ডের জনসংখ্যা ৫০ লক্ষ। আর এই দেশে নেতাদের মধ্যে ভিআইপি কালচার নেই। নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী জেসিন্ডা আরডের্ন কিছু সময় আগে তিন মাসের সন্তানকে নিয়ে রাষ্ট্রপুঞ্জের বৈঠকে যোগ দিয়েছিলেন। ওই সময় তিনি ব্রেস্টফিডিংও করিয়েছিলেন সন্তানকে। তা নিয়েও বেশ আলোচনা হয়েছিল।

 



Source link