South Africa Returnee Infected With Variant Different From Delta


নয়া দিল্লি: করোনার (Coronavirus) নতুন ভ্যারিয়েন্ট (New Variant) নিয়ে দেশে বাড়ছে চিন্তা। সম্প্রতি দক্ষিণ আফ্রিকা (South Africa) থেকে বেঙ্গালুরুতে (Bengaluru) আসা দু’জন ব্যক্তির দেহে করোনার পাওয়া গিয়েছে। কোভিড পরীক্ষার পর একজনের নমুনা থেকে দেখা গিয়েছে ‘এটি ডেল্টার (Delta) বিকল্প রূপ থেকে অনেকটাই আলাদা।’ সোমবার কর্ণাটকের (Karnataka) স্বাস্থ্যমন্ত্রী ডাঃ কে সুধাকর জানিয়েছেন এ কথা।

মন্ত্রী বলেন যে এখনই সরকারিভাবে এ কথা জানাচ্ছেন না, কারণ এখনও কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রক এবং ইন্ডিয়ান কাউন্সিল ফর মেডিকেল রিসার্চ (আইসিএমআর) সঙ্গে যোগাযোগ করা হচ্ছে এই বিষয়টি নিয়ে,  সংবাদসংস্থা পিটিআই সূত্রে এমনটাই খবর। ডাঃ সুধাকর বলেন, “যে নমুনা পাওয়া গিয়েছে সেটা ওমিক্রনও কি না তা এখনও বলা যাচ্ছে না। তবে ডেল্টার থেকে অনেকটাই আলাদা এই নমুনা। আইসিএমআর এবং কেন্দ্রীয় সরকারের আধিকারিকদের সঙ্গে যোগাযোগ করছি।” 

তিনি জানান যে নমুনাটি আইসিএমআর-এ পাঠানো হয়েছে। যদিও এখন ওই ব্যক্তির পরিচয় জানাতে অস্বীকার করেছে। কর্ণাটকের স্বাস্থ্যমন্ত্রীর কথায়, “একজন ৬৩ বছর বয়সী ব্যক্তির দেহে ধরা পড়েছে। যার নাম আমার প্রকাশ করা উচিত নয়। তার রিপোর্ট একটু ভিন্ন। আমরা ICMR আধিকারিকদের সঙ্গে আলোচনা করব এবং সন্ধ্যার মধ্যে লোকেদের জানাব যে এটি কী।” 

আরও পড়ুন, ওমিক্রন সংক্রমণের ঝুঁকির তালিকায় বাংলাদেশ, সিঙ্গাপুরও, রয়েছে মোট এক ডজন দেশ

স্বাস্থ্যমন্ত্রী জানিয়েছিলেন যে তিনি মঙ্গলবার প্রধান সচিব থেকে প্রাথমিক স্বাস্থ্য কেন্দ্র পর্যায়ের চিকিৎসকদের সঙ্গে গৃহীত পদক্ষেপের বিষয়ে একটি ম্যারাথন বৈঠকের সভাপতিত্ব করবেন। কোভিড-১৯ সংক্রান্ত কারিগরি উপদেষ্টা কমিটির সদস্যদেরও বৈঠকের জন্য আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে। 

এও জানান হয়েছে, জিনোমিক সিকোয়েন্সিংয়ের পরে ওমিক্রন কীভাবে আচরণ করে সে সম্পর্কে ১ ডিসেম্বরে পরিষ্কার তথ্য পাব। সেই অনুযায়ী আমরা সমস্ত ব্যবস্থা শুরু করব। মন্ত্রী বলেন, “আমরা গত ১৪ দিনে দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে যারা এসেছিল তাদের সবাইকে ট্র্যাক করছি এবং ঘনিষ্ঠভাবে পর্যবেক্ষণ করছি। আমরা শনিবার থেকে তাদের সঙ্গে যোগাযোগ এবং পরীক্ষা শুরু করেছি।”  



Covid Variant: চিন্তা বাড়ছে দেশে, দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে ফিরতি যাত্রীরা আক্রান্ত ভিন্ন ভাইরাসে

এদিকে, দেশ জুড়ে ঘরে ঘরে চলছে কোভিড টিকাকরণের কাজ। কেন্দ্রের তরফে এই কাজ করা হচ্ছে। দেশে টিকাকরণ বাড়িয়ে ওমিক্রন আটকানোর চেষ্টা চলছে।   

 



Source link